মাশরাফির হাতে তুলে দিচ্ছে ‘সেরা বাঙালি’র সম্মাননা

একসময় কলকাতার জনপ্রিয় দৈনিকটি তার নামের বানান লিখত ‘মশরাফি বিন মুর্তজা’। আনন্দবাজার পত্রিকার তখনকার ক্রীড়া সাংবাদিক গৌতম ভট্টাচার্যকে একবার ঢাকায় নিজের বাড়িতে ইন্টারভিউ দেওয়ার পর মাশরাফি মজা করে বলেছিলেন_ দাদা এবার আমার নামটি অন্তত ঠিকভাবে লেখ_ মাশরাফি বিন মুর্তজা। পরের দিন সেই আগের বানানেই ছাপা হয়েছিল মাশরাফির ইন্টারভিউ। পরে সেই সাংবাদিক ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন এভাবে_ ‘নামের বানানে কী আসে যায়, মানুষ মনে রাখে কীর্তিটাই…’। মাশরাফির সেই কীর্তিকেই সম্মান জানাচ্ছে ভারতের সর্বাধিক প্রচারিত আঞ্চলিক দৈনিকটি। বাংলাদেশ অধিনায়কের হাতে তুলে দিচ্ছে তারা ‘সেরা বাঙালি’র সম্মাননা। গতকাল বিকেলে এ পুরস্কার তুলে নিতে সপরিবারে কলকাতা গেছেন মাশরাফি। সীমান্তের রেখা ভেদ করে প্রতিবছরই বাংলা ভাষাভাষির মধ্য থেকে এ পুরস্কারটি দিয়ে থাকে এবিপি সংস্থা। এবারও খেলাধুলার ক্যাটাগরিতে মাশরাফির হাতেই উঠছে এ পুরস্কারটি। এর আগে ২০০৭ সালে বাংলাদেশ থেকে হাবিবুল বাশার আর ২০১২ সালে সাকিব আল হাসানকে এই পুরস্কার দিয়েছিল কলকাতার এ সংস্থাটি। আজকের অনুষ্ঠানে মাশরাফি ছাড়াও বাংলাদেশি অভিনেত্রী জয়া আহসানও উপস্থিত থাকবেন। বিনোদন ক্যাটাগরিতে জয়ার হাতেও পুরস্কারটি উঠতে পারে। কেননা বাংলাদেশের মতো পশ্চিমবঙ্গেও সমান জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী। ভারতের জাতীয় ক্রিকেট দলে এ মুহূর্তে ঋদ্ধিমান সাহা ছাড়া কোনো বাঙালির প্রতিনিধিত্ব নেই। অন্যদিকে মাশরাফির নেতৃত্বে গত দুই বছরে বাংলাদেশ যেভাবে ক্রিকেটের বিশ্বমঞ্চে নিজেদের সাফল্য তুলে ধরেছে তাতে বাংলা ভাষাভাষি প্রতিটি মানুষই গর্বিত হয়েছে। সে নিরিখেই মাশরাফিকে খেলাধুলার ক্যাটাগরিতে ‘সেরা বাঙালি’র পুরস্কার তুলে দেওয়া হচ্ছে বলে মনে করা হচ্ছে। দেশের বাইরে এমন একটি অনুষ্ঠানে ডাক পেয়ে মাশরাফি নিজেও রোমাঞ্চিত। ‘আমার কাছে যে কোনো পুরস্কার বা সংবর্ধনাই আনন্দের। আমি মানুষকে আনন্দ দিতে ভালোবাসি, আর তার স্বীকৃতস্বরূপ যদি কোনো সম্মাননা পাই তাহলে সে আনন্দ আরও বেড়ে যায়।’ দু’দিন কলকাতায় থাকার পর মঙ্গলবার দেশে ফেরার কথা মাশরাফির।

Share This:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *