ভারতের অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ২৫তম বছরে ‘কালো দিবস’ ও ‘শৌর্য দিবস’ পালিত

ভারতের অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ ধ্বংসের ২৫তম বছর পূর্তি হয়েছে ৬ ডিসেম্বর। এ উপলক্ষে দেশটির বামদলগুলো পালন করেছে ‘কালো দিবস’। অপরদিকে ‘শৌর্য দিবস’ পালন করেছে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ। ওই দিন শহরের প্রতিটি যানবাহনের ওপর নজর রেখেছে মেটাল ডিটেক্টর, স্নিফার ডগ- যাতে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে না পারে। অযোধ্যা শহরে নিরাপত্তা বাহিনীকে সতর্ক রাখা হয়েছিল। প্রতিটি গাড়ি পরীক্ষার জন্য ব্যবহার করা হয়েছে বম্ব ডিটেক্টর। পরিস্থিতির গুরুত্ব ও কেন্দ্র সরকারের অ্যাডভাইসরির পরিপ্রেক্ষিতে ফৈজাবাদ জেলা প্রশাসন দুই শহরেই কঠোর নিরাপত্তা বলয়ে রাখা হয়েছিল। পুলিশের পাশাপাশি সিআরপিএফ মোতায়েন করা হয় অযোধ্যা ও ফৈজাবাদে। অযোধ্যা গাড়ি হোটেল ও ধর্মশালাগুলিতে রীতিমত তল্লাশি চলেছে।অযোধ্যা ও ফৈজাবাদের বাসিন্দাদের বাড়িতে দ্বীপ জ্বালিয়ে দিনটি পালন করে বজরং দল। বিশ্ব হিন্দু পরিষদের মুখপাত্র শরদ শর্মা জানান, দিনটি উপলক্ষে শুধু বাড়িগুলো নয়, দুই শহরের মন্দিরগুলো সাজানো হয়। প্রথা মেনে অযোধ্যায় পরিষদের সদর দফতর করসেবকপুরমে ‘শৌর্য দিবস’ ও ‘বিজয় দিবস’ পালিত হয়েছে। অপরদিকে, অযোধ্যা ও ফৈজাবাদের মুসলিম সংগঠনগুলি ৬ ডিসেম্বর ‘কালো দিবস’ হিসেবে পালন করেছে। প্রসঙ্গত, ১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর ভাঙা হয়েছিল বাবরি মসজিদ। দিনটি স্মরণ করে সিপিএম, সিপিআই, আরএসপি, ফরোয়ার্ড ব্লক, সিপিআই(এম-এল), এসইউসিআই-র মতো বামদলগুলি ‘কালো দিবস’ পালন করেছে।

Share This:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *