নারী-পুরুষ উভয়েরই জিম বা যোগ ব্যায়ামে লেগিংস প্রথম পছন্দ

এ সময়ের পছন্দ কিংবা অনেকেরই স্বাচ্ছন্দের পোশাক হচ্ছে লেগিংস। নারী-পুরুষ উভয়েরই জিম বা যোগ ব্যায়ামে লেগিংস প্রথম পছন্দ। আবার এই ধরনের পোশাক শরীরের সঠিক চিত্র ফুটিয়ে তোলে বলে অনেকে ‘ফ্যাশনওয়্যার’ হিসেবেও বেছে নেন টাইট ফিটিং লাইক্রা-স্প্যানডেক্স প্যান্ট। এই ফ্যাশন ট্রেন্ডের নাম এখন অ্যাথলেশিওর। তবে চিকিৎসক ও ত্বক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিষয়টি মোটেও ফ্যাশনেবল নয়। এর ফলে ঘাম জমে ইনফেকশন বা সংক্রমণের ঝুঁকি বাড়ে। মাউন্ট সিনাই স্কুল অব মেডিসিনের ত্বক বিশেষজ্ঞ মাইকেল অ্যাডলম্যানের মতে, দীর্ঘ সময় সিন্থেটিক লাইট লেগিংস, ওয়ার্কআউট প্যান্ট পরে থাকার কারণে ত্বকে অক্সিজেন চলাচল ব্যাহত হয়। ফলে ঘাম জমে ইনফেকশন সমস্যা সৃষ্টি হয়। টিনিয়া ক্রুরিস এই ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ পুরুষের বেশি হয়। সাধারণভাবে একে ‘জক ইচ’ (আন্ডারওয়্যার থেকে চুলকানি) বলা হয়। এর থেকে ছত্রাক সংক্রমণ হয়ে উরুর ভেতরের অংশ, নিতম্ব, স্বন্ধি স্থান ও যৌনাঙ্গে চুলকানি হয়। লেগিংসের কারণে নারীর শরীরর স্পর্শকাতর স্থানগুলোতে সংক্রমণ বাড়ছে। টাইট, ভেজা সিন্থেটিক পোশাক অনেকক্ষণ পরে থাকার কারণে তাদে কুচকি, বগল, শরীরের বিভিন্ন ভাজে জীবাণু সংক্রমণ হয়। নোংরা, ঘামে ভেজা জিম ম্যাট ব্যায়াম করার পর শরীর থেকে প্রচুর টক্সিন বেরিয়ে যায়। তাই লেগিংস পরে জিম গেলে নিজের শরীরের টক্সিনের ওপরই আপনি বসে রয়েছেন। স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, নিয়মিত লেগিংস পরে জিম করার কারণে অনেক মহিলা ভ্যাজাইনাইটিসের সমস্যায় ভুগছেন। তাই ব্যায়াম করার ম্যাটও নিয়মিত পরিষ্কার রাখতে হবে। ব্যায়ামের রুটিনের পর একটু যত্ন নিলে এই সমস্যা কাটিয়ে ওঠা যায়। ব্যায়ামের পর শরীরের চারপাশ থেকে ঘাম ধুয়ে ফেলতে হবে। ভেজা ভাব থেকে জন্মানো ব্যাকেটেরিয়া নানা সমস্যা তৈরি করতে পারে। তাই জিম করার পর গোসল সেরে হালকা সুতির পোশাক পরতে হবে, যাতে বাতাস চলাচল করতে পারে। সূত্র: রিডার ডাইজেস্ট।

Share This:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *